1. amd477271@gmail.com : admin : প্রভাত সংবাদ
  2. mdjoy.jnu@gmail.com : dainikbangladesh : Shah Zoy
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ১২:২৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমারখালীতে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মৌসুমী আক্তার প্রচারণায় এগিয়ে কুমারখালীতে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তুষারের ব্যাপক জনসংযোগ কুমারখালীর গড়াই রেল ব্রিজের নীচ থেকে এক অজ্ঞাত ব্যক্তির বিবস্ত্র মরদেহ উদ্ধার মহাসড়কে দুর্ঘটনা হ্রাস ও নিরাপত্তা নিশ্চিত কল্পে কুমিল্লা রিজিয়ন কর্তৃক বিশেষ অভিযানে প্রসিকিউশন ১৭০টি, থ্রি হুইলার আটক ৪০টি ও দেড় কাজি গাঁজা সহ গ্রেফতার ১ কুমিল্লা রিজিয়নের ২২ থানার পুলিশ সদস্যদের জন্য ওরস্যালাইন, গ্লুকোজ ও পানি দিচ্ছেন অতিরিক্ত ডিআইজি মো: খাইরুল আলম আতাউর রহমান আতা ভাই কে আবারো জয়যুক্ত করার লক্ষ্যে জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়টুকু দিয়ে কাজ করে চলেছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল কুদ্দুস

প্রেমের টানে চীনের এক যুবক জীবননগরে

  • প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৩
  • ৯৩ বার পড়া হয়েছে

 

স্টাফ রিপোর্টার

প্রেমের টানে চীন থেকে এসে সাউই (২৮) নামে এক যুবক বিয়ে করলেন চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগরের ফারিয়া সুলতানা মুনকে। জীবননগর উপজেলার সীমান্ত ইউনিয়নের গয়েশপুর গ্রামের দিনমজুর সানোয়ার হোসেনের মেয়ে ফারিয়া (২০)। গত ২০দিন আগে সানোয়ারের নিজ বাড়িতে বিবাহ-বন্ধনে আবদ্ধ হোন তারা ৷

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ফারিয়ার সাথে দীর্ঘ এক বছর যাবৎ ফেইসবুকের মাধ্যমে ওই যুবকের পরিচয় হয়। একসময় চীনের যুবক ফারিয়াকে বিয়ে করতে চায় । পরে যুবক ও তরুনীর মধ্যে প্রায় ৮ মাস উই চ্যাটের মাধ্যমে কথোপকথন হয়। এরপর গত ২০দিন আগে চীন থেকে গয়েশপুর গ্রামে আসেন। পরে ওইদিন রাতে পারিবারিকভাবে তাদের বিবাহ সম্পন্ন হয়।

প্রতিবেশী সাহিনা খাতুন বলেন, অন্য সকল বিয়ের চেয়ে এটি একটি ভিন্ন। কারণ বিদেশী ছেলে আর দেশি মেয়ে বিয়ে। অনেক আনন্দ ও উল্লাস করেছি । আশেপাশের অনেকে ছুটে আসছে বিদেশী জামাইকে দেখার জন্য।

ফারিয়ার বাবা বলেন,মোবাইলের মাধ্যমে আমার মেয়ের সাথে চীনের ওই ছেলের পরিচয় হয়। । পরিচয় হওয়ার পর ওই ছেলে আমার মেয়েকে বিয়ে করতে চাইলে আমরা তাকে আমাদের দেশে আসতে বলি এবং টসকল আইন মেনে ধুমধাম করে বিয়ে দিয়েছি।
ফারিয়ার মা আনজু খাতুন বলেন, আমরা পারিবারিকভাবে মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি। জামাই অনেক ভাল ও শান্ত স্বভাবের। আমার মেয়েকে চীনে নিয়ে যাওয়ার কথা বলছে।
ফারিয়া বলেন,সসাউইর সাথে আমার মোবাইলে পরিচয় হয়। পরে পরিবারের সকলেই পছন্দ হয়। আমার পরিবার রাজি থাকায় প্রায় আট মাস উই চ্যাটের মাধ্যমে কথাবলি। সাউই আমাকে কিছু ভাষা শিখিয়ে দিয়েছিলেন। সেগুলো দিয়ে তার সাথে আমি কথা বলি। তারপরে গত ২০দিন আগে আমাদের বিয়ে হয়। জামাই হিসেবে তিনি অনেক ভালো মনের মানুষ। তিনি সবকিছু মানিয়ে নিতে চেষ্টা করেন। ভাষাগুলো শিখতে আমার আরো সময় লাগবে। আমি চেষ্টা করছি। কিছুদিনের মধ্যে সকল প্রক্রিয়া শেষ করে আমাকে চীনে নিয়ে যাবেন।

সীমান্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ইসাবুল ইসলাম মিল্টন বলেন, চীন থেকে এসে এক যুবক গয়েশপুর গ্রামের একটি মেয়েকে আমি বিয়ে করেছে এটা আমি শুনেছি এবং ছেলেটাকে দেখতে প্রতিদিন তার বাড়িতে মানুষ ভিড় করছে। ভিসা সংক্রান্ত কাজ শেষ করে ছেলেটি মেয়েটিকে চীনে নিয়ে যাবেন বলে জানতে পেরেছি । এতে করে দারিদ্র্যতাও ঘুচবে বলে আমার মনে হয়। মেয়ের পরিবারে স্বচ্ছলতা ফিরে আসবে।

জীবননগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ নাসির উদ্দিন মৃধা বলেন, চীনের এক নাগরিক জীবননগর উপজেলার গয়েশপুর গ্রামে এসে একটি মেয়েকে বিয়ে করেছে বিয়ের ঘটনাটি আমরা শুনেছি। তাদের পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়েছে। তাদের সার্বিক নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন