1. amd477271@gmail.com : admin : প্রভাত সংবাদ
  2. mdjoy.jnu@gmail.com : dainikbangladesh : Shah Zoy
বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
কুমারখালীতে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী মৌসুমী আক্তার প্রচারণায় এগিয়ে কুমারখালীতে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তুষারের ব্যাপক জনসংযোগ কুমারখালীর গড়াই রেল ব্রিজের নীচ থেকে এক অজ্ঞাত ব্যক্তির বিবস্ত্র মরদেহ উদ্ধার মহাসড়কে দুর্ঘটনা হ্রাস ও নিরাপত্তা নিশ্চিত কল্পে কুমিল্লা রিজিয়ন কর্তৃক বিশেষ অভিযানে প্রসিকিউশন ১৭০টি, থ্রি হুইলার আটক ৪০টি ও দেড় কাজি গাঁজা সহ গ্রেফতার ১ কুমিল্লা রিজিয়নের ২২ থানার পুলিশ সদস্যদের জন্য ওরস্যালাইন, গ্লুকোজ ও পানি দিচ্ছেন অতিরিক্ত ডিআইজি মো: খাইরুল আলম আতাউর রহমান আতা ভাই কে আবারো জয়যুক্ত করার লক্ষ্যে জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়টুকু দিয়ে কাজ করে চলেছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল কুদ্দুস

ভিক্ষুকরাও নিতে চাচ্ছে না এক ও দুই টাকার কয়েন

  • প্রকাশিত: সোমবার, ২১ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৫০ বার পড়া হয়েছে

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি

ছোট-বড় ব্যবসায়ী, হাট বাজার কোথাও চলে না এই কয়েন। গত দুই বছর ধরে অজানা কারণেই কুষ্টিয়া জেলাজুড়ে অচল হয়ে পড়েছে এই কয়েন। ব্যবসায়ীদের অভিযোগ, কোনো ব্যাংক নিতে চায় না, ফলে অচল হয়ে পড়েছে কয়েনগুলো। ব্যবসায়ীরা বলছেন জনসচেতনতার অভাব, তাছাড়া প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নিলে জেলায় আবারও সচল হবে এক ও দুই টাকার কয়েন।

কুষ্টিয়ার হাট-বাজারে কেনাকাটা করতে গিয়ে খুচরা টাকা ক্রেতা অথবা বিক্রেতা উভয়ই ছাড় দিয়ে চলছেন। বড় ব্যবসায়ীরা এসব টাকা গ্রহণ করতে চায় না। তাছাড়া ব্যাংক থেকেও পড়তে হয় নানা ঝামেলায়। এ কারণে একেবারেই বন্ধ হয়েছে এই কয়েনের আদান প্রদান। ভুক্তভোগী জনসাধারণ ও ব্যবসায়ীরা বলছেন সব ব্যাংকগুলো এই কয়েন নিলে এই সমস্যার সমাধান হবে।

এ ব্যাপারে সোনালী ব্যাংকের কুষ্টিয়া শাখার অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার শহীদুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের একই নীতিমালায় চলে সব ব্যাংকগুলো। ব্যাংকে কিছু খুচরা কয়েন রাখার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। আমার এখানে যথেষ্ট পরিমাণে কয়েন রাখা আছে।

জানতে চাইলে কুষ্টিয়া বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ কৌশিক আহমেদ অভিযোগ করে বলেন, ব্যবসায়ীরা কয়েন নিচ্ছে না কারণ ব্যাংকগুলো নিচ্ছে না। এগুলো না নেয়া অপরাধ। সরকার থেকে কয়েনগুলো বাতিল করা হয়নি। আমি সরকারের কাছে অনুরোধ করবো যেন এ ব্যাপারে জোরালো নির্দেশনা দেয়।

এদিকে, জেলা প্রশাসক এহতেশাম রেজা বলেন, কয়েনগুলো বৈধ, যেহেতু সরকারিভাবে কয়েনগুলো নিষিদ্ধ না, সেহেতু এগুলো নেয়ার আইনগত বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

তিনি বলেন, জেলায় সকল ব্যাংকের প্রতিনিধিত্ব করে সোনালি ব্যাংক। সব ব্যাংকে দেয়ার জন্য আমি আমি চিঠি ইস্যু করবো। যদি এর ব্যত্যয় ঘটে, তবে আমি বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে রিপোর্ট করবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন